"/> Home Interior Decoration - Cubic Interior Decorating Tips

Home Interior Decoration

Home Interior Decoration

Home Interior Decoration ডিজাইনের স্টাইল লিস্টে আপনাকে স্বাগতম। একটি নতুন ফ্ল্যাট এর ইন্টেরিয়র ডিজাইনের ব্যাপারে ভাবতে গেলে প্রথমেই আসে কোন স্টাইলে ডিজাইনটি হবে। সাধারনত. আমাদের দেশে ডিজাইন স্টাইলকে একটু কম গুরুত্ব সহকারে দেখা হয়। কিন্তু এটির গুরুত্ব অনুভব করা যায় যখন আমরা ফ্ল্যাটে বসবাস শুরু করি। Furniture Color Combination, Texture, Windows Position, Lighting ইত্যাদি বিষয়গুলোর সঠিক কম্বিনেশন না হলে এক সময় পুরো ঘরের পরিবেশটাই উদাসীন এবং স্ট্রেসফুল হয়ে যায়। এজন্য, আগে থেকেই ডিজাইন স্টাইল সম্পর্কে আমাদের জেনে নেয়া দরকার।  উপমহাদেশের Home Interior Decoration প্রেক্ষাপটে সর্বমোট ৪টি স্টাইল এখানে বর্ননা করা হয়েছে ছবি সহ:

০1. Traditional Interior Style:

Traditional Interior Design for interior design
Traditional Interior Design

Traditional Interior Design  মূলত ইউরোপিয়ান ওল্ড-স্কুল স্টাইল এর সঙ্গে কাঠের নকশার ব্যবহার থেকে এসেছে। আমাদের দেশে এখনো এই স্টাইলের ইন্টেরিয়র ডিজাইনের জনপ্রিয়তা রয়েছে। এই স্টাইলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন দিক হল ”সামঞ্জস্য” অর্থাৎ সকল উপাদানগুলো যেমন সোফা থেকে শুরু করে ল্যাম্প এবং অন্যান্য আসবাবপত্র জোড়ায়-জোড়ায় থাকবে। এছাড়া এই স্টাইলের আরও কিছু বৈশিষ্ট রয়েছে যেমন: Heavy weight furniture fittings, Classic and Antique Arts Piece, Dark Wood, Practical Color,  Stylish and Elegant.

ট্রেডিশনাল স্টাইলের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য:

  • ক্লাসিক ইউরোপিয়ান স্টাইলের প্রতিচ্ছবি।
  • সম্প্রসারিত মোল্ডিং এবং উড প্যানেলিং।
  • বিল্ট ইন ক্যাবিনেট।
  • এক্সপেন্সিভ ফেব্রিক যেমন: সিল্ক, ভেলভেট, কাশ্মিরি এবং কটন ও লিলেনের মত আরামদায়ক কাপড়।
  • উজ্জ্বল টাইল এবং উডেন ফ্লোর প্যাটার্ন।

ট্রেডিশনাল স্টাইলের আরও ডিজাইন দেখে নিতে পারেন এই লিংকে: https://bit.ly/2TVstc7

০2. Modern Interior Style:

Modern Interior Design for interior design

প্রথমত, ইন্টেরিয়র ডিজাইনের উপর ক্লিন এবং চকচকে একটা বৈশিষ্ট্যই মূলত মডার্ন স্টাইলকে রিপ্রেজেন্ট করে। এই ডিজাইনে বেশিরভাগ গ্লাস এবং স্টিল জাতীয় ম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করা হয়। এটি দেখতে খুবই সিম্পল এবং অত্যন্ত সুন্দর। পুরো ডেকোরেশনের মধ্যে আপনি একটা ফ্রেশ লুক পাবেন। যারা ঘরের ইন্টেরিয়র ডিজাইনে একটু পরিবর্তন চান তদের অনেকেরই মন জিতে নিতে পারে শুধুমাত্র এই দুটি বিষয়, মসৃন এবং ফার্নিচারের ইউনিক ডিজাইন।

মডার্ন ইন্টেরিয়র স্টাইলের মূল বৈশিষ্ট্যসমুহ:

  • বোল্ড কালার কনট্রাস্ট/প্রাথমিক কালারের সাথে সামাঞ্জস্যতা।
  • সমতল এরিয়া কার্পেট/জ্যামিতিক প্যাটার্ন।
  • ওপেন ফ্লোর প্ল্যান।
  • মসৃন এবং ক্লিন লাইন ফার্নিচার।
  • ইনটেনশনাল সামাঞ্জস্যহীন ডিজাইন।
  • জিনিসপত্রের সাথে শিল্পের সংমিশ্রন।

মডার্ন স্টাইলের আরও ডিজাইন দেখে নিতে পারেন এই লিংকে :

https://bit.ly/2vTh6ts

০3. Contemporary Interior Style:

contemporary interior design for interior design
contemporary interior design

অনেকেই মনে করেন Contemporary Interior Style আর Modern Style একই। কিন্তু বাস্তবে এই দুটি স্টাইল একে অপরের থেকে সম্পূর্ন আলাদা। কিন্তু, ডিজাইনাররা অনেক সময় এই দুটি স্টাইলকে নেগোসিয়েট করে একটি প্যাটার্ন দাড় করে থাকেন। কন্টেম্পরারি ডিজাইন প্রকৃতির সাথে আরও বেশি সম্পর্কিত। বর্তমান সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় স্টাইল এটি, কারন ট্রেডিশনাল স্টাইলের থেকে এখানে খরচ তূলনামুলকভাবে কম।

কন্টেম্পরারি ইন্টেরিয়র স্টাইলের মূল বৈশিষ্ট্যসমুহ:

  • ওপেন স্পেস/ওপেন ফ্লোর প্ল্যান।
  • লেআউটের ভিন্নতা।
  • প্রাকৃতিক লাইটের ব্যবহার।
  • নিরপেক্ষ কালার।
  • মেটাল পিস এর ব্যবহার।
  • টেক্সার এবং ন্যাচারাল ফেব্রিক।
  • অত্যন্ত ডার্ক/অত্যন্ত লাইট কাঠ টোন।
  • লাইটিং ডিজাইনে শিল্পের ছোঁয়া।

কন্টেম্পরারি স্টাইলের আরও ডিজাইন দেখে নিতে পারেন এই লিংকে:

https://bit.ly/3aGdHNm

০4.Minimalist Home-Interior Style:

Minimalist Interior design for interior design
Minimalist Interior design

নামেই স্পস্টভাবে বোঝা যায়, Minimalist Interior Design সত্যিই সিম্পল এবং লো-কি। এই ডিজাইনের মুলনীতি হল “less is more”, তাই এখানে সিম্পল কিছু বিষয়কে অসাধারনভাবে ডিজাইনের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়। যদিও টেকনিক্যালি এটি কোন প্রতিষ্ঠিত ডিজাইন স্টাইল না, কিন্তু এটির যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে এই ডিজাইন ট্রেন্ড চালু হয়েছে এবং জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এটি মূলত সূক্ষ্ম জাপানীজ নকশাকার দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল।

মিনিমালিস্ট ইন্টেরিয়র স্টাইলের মূল বৈশিষ্ট্যসমুহ:

  • সিম্পল হোম-ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন।
  • সাদা, কালো এবং প্রাথমিক কালার প্রাধান্য পাবে। কোন উদ্দীপক কালার অথবা প্রিন্ট ব্যবহৃত হবে না।
  • রুমের ভিতরে মিনিমাম আসবাবপত্র থাকবে।
  • ভেতরের স্পেসে যথেষ্ট বাতাস অতিক্রম করবে।
  • ক্লিন ডিজাইন লেআউট।

মিনিমালিস্ট স্টাইলের আরও ডিজাইন দেখে নিতে পারেন এই লিংকে:

https://bit.ly/2Qi8pQz

দক্ষিন এশিয়ার অঞ্চলগুলোতে মূলত এই চারটি স্টাইল বেশি জনপ্রিয়। এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশে আরও বেশকিছু ইন্টেরিয়র স্টাইল প্রচলিত আছে, যেমন: মিড-সেনচুরি মডার্ন স্টাইল, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইন্টেরিয়র ডিজাইন, একলেকটিক ডিজাইন স্টাইল, বিচ/নটিক্যাল স্টাইল, ফার্ম-হাউজ স্টাইল, স্ক্যান্ডিনেভিয়ান স্টাইল, রাস্টিক স্টাইল, সাউথ-ওয়েস্টার্ন স্টাইল, ভিনটেজ স্টাইল, বোহেমিয়ান স্টাইল, আর্ট ডেকো স্টাইল ইত্যাদি।

Share post: